ঢাকা, শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

Live

খাদ্যে ভেজাল বন্ধে যুদ্ধ ঘোষণার আহবান হাইকোর্টের

২০:৫২, ১২ মে ২০১৯ রোববার

ভেজাল ও নিম্নমানের ৫২টি পণ্য উৎপাদন, বিক্রয় ও বাজার থেকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। একই সাথে এসব পণ্য বাজার থেকে জব্দ করে ধ্বংসের আদেশ দেয়া হয়েছে। রোববার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ এক রিটের শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

হাইকোর্টের আদেশে বলা হয়, বিএসটিআই, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর যৌথভাবে এসব পণ্যের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করবে। অভিযান শেষে ১০ দিনের মধ্যে অগ্রগতি প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করবে তিন সংস্থা।

আদেশে আরও বলা হয়, ভেজাল ও নিম্নমানের পণ্য ও খাবারের কারণে এদেশে বাস করাটা অনিরাপদ হয়ে উঠেছে। যাদের দ্বৈত নাগরিকত্ব নেই তাদের তো এদেশেই থাকতে হবে। 

আদালত বলেন, খাদ্য নিরাপত্তার ব্যাপারে আপসের কোন সুযোগ নেই। মাদকবিরোধী অভিযানের মত খাদ্য নিরাপত্তা প্রশ্নেও ‘জরুরী অবস্থা’ ঘোষনা করে ভেজাল ও নিম্নমানের খাদ্যপণ্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করতে সরকার ও সরকারপ্রধানের প্রতি আহবান জানিয়েছে উচ্চ আদালত।

আদালত আদেশে বলেন, খাদ্যমানের এ পরীক্ষা শুধু রোজার মাসে নয় সারা বছরই থাকা উচিত। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা শুধুমাত্র একজন কর্মকর্তা হিসেবে না, একজন দেশপ্রেমিক হিসেবে জনসাধারণের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে যেন তাদের অর্পিত দায়িত্ব পালন করেন। আদালত সেটাই প্রত্যাশা করে।

গত ৬ মে বিএসটিআই কর্তৃক বাজারে এসব পণ্যে ভেজাল ধরা পড়ার পরও জব্দ না করা, সেগুলো বাজার থেকে প্রত্যাহারের ব্যবস্থা না নেওয়া ও প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপ না নেওয়ায় আইনি নোটিশ পাঠান ভোক্তা অধিকার সংস্থা কনসাস কনজুমার্স সোসাইটি (সিসিএস)। কিন্তু কোনো জবাব না পাওয়ায় বৃহস্পতিবার এ রিট দায়ের করা হয়। রিটে ওইসব প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট পণ্য কেনো জব্দ করা হবে না বা বাজার থেকে কেনো প্রত্যাহার করা হবে না এবং তাদের বিরুদ্ধে কেনো শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে না- তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি পেশ করা হয়।

কৃষি কাগজ/এস এম