ঢাকা, মঙ্গলবার ০২ জুন ২০২০ | ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

Live

বুধবার থেকে বিএসএমএমইউতেও করোনা পরীক্ষা

২৩:৩৯, ৩১ মার্চ ২০২০ মঙ্গলবার

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) আগামীকাল বুধবার (১ এপ্রিল) থেকে করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষা কার্যক্রম শুরু হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বেতার ভবনের দ্বিতীয় তলায় স্থাপিত করোনাভাইরাস ল্যাবরেটরিতে এ পরীক্ষা করা হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. মিল্টন হলে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) কর্তৃক পিপিই, অ্যান্টিসেপটিক হ্যান্ডরাব সল্যুশনসহ করোনা সংশ্লিষ্ট সুরক্ষা সামগ্রী প্রদানকালে বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া এ কথা জানান।

 

তিনি জানান, প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত রোগীরা এ পরীক্ষা করতে পারবেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইরোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সাইফ উল্লাহ মুন্সী জানান, চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী অর্থাৎ বাংলাদেশ বেতার ভবনের নিচতলায় স্থাপিত ফিভার ক্লিনিকের কর্তব্যরত চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণের পর যেসব রোগীরা করোনা শনাক্তকরণের পরীক্ষার জন্য নির্দেশিত হবেন তারাই এ টেস্ট করতে পারবেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. মিল্টন হলে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃক করোনা ভাইরাস সুরক্ষা সামগ্রী প্রদানকালে উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, উপ উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, বিএমএ মহাসচিব ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া আরও বলেন, বিশ্ব আজ একটি দুর্যোগের মুখোমুখী। অদৃশ্য শত্রু করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের সব নাগরিকসহ বিশ্ববাসীকে লড়াই করতে হচ্ছে। চিকিৎসক, সাংবাদিক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা আজ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন। বিএসএমএমইউয়ের পক্ষ থেকে করোনাভাইরাস বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টি ও করণীয় নির্ধারণে ইতিমধ্যে নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। গত ২ সপ্তাহ ধরে বেতার ভবনে ফিভার ক্লিনিকে জ্বর সর্দি-কাশি রোগীদের পৃথকভাবে চিকিৎসাসেবা চলছে। বহির্বিভাগের চিকিৎসাসেবা ও জরুরিসেবা চালু রয়েছে। এছাড়া রোগীদের সুবিধার্থে হেল্প লাইন চালু করা হয়েছে।

 

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন বলেন, করোনা প্রতিরোধ ও চিকিৎসায় করণীয় নির্ধারণ এবং জনসচেতনতা সৃষ্টিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, স্বাস্থ্য অধিদফতরসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন ইতিমধ্যে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিশেনের পক্ষ থেকেও করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণসহ নানা কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

এদিকে মঙ্গলবার বাংলাদেশ ডক্টরস ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসপাতালের জন্য কিছু হ্যান্ড স্যানিটাইজার প্রদান করেছে।