ঢাকা, মঙ্গলবার ১৯ নভেম্বর ২০১৯ | ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬

Live

পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ৫৫-৬০ টাকা নির্ধারণ, তবে....

১১:৪৫, ৮ নভেম্বর ২০১৯ শুক্রবার

পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা চলছে গত কয়েক মাস ধরেই। এর মধ্যেই মিশর, তুরস্ক ও চীনের পেঁয়াজের দাম ৫৫-৬০ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছে শ্যামবাজার বণিক সমিতি। এছাড়া মিয়ানমারের পেঁয়াজ প্রতিকেজি ৮০ থেকে ৮৫ টাকায় বিক্রি করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন তারা। তবে এই মূল্য শুধু পাইকারি বাজারের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য হবে। সেখান থেকে কিনে নিয়ে খুচরা বাজারে বিক্রির সময় মূল্য যেন বেশি বেড়ে না যায় সেজন্য নজরদারি করবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী।

আজ শুক্রবার থেকে শ্যামবাজার বণিক সমিতির বেঁধে দেওয়া দামে পাইকারি পেঁয়াজ বিক্রি করা হবে বলে জানান শ্যামবাজারের ব্যবসায়ীরা। সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী এটি করা হবে বলে জানান তারা।

বাস্তবে আজ শুক্রবার রাজধানীর বাজার ঘুরে পেঁয়াজের দাম সামান্য কমার লক্ষণ দেখা গেছে। তবে তা পর্যাপ্ত নয় বলে জানিয়েছেন ক্রেতারা। ক্রেতাদের প্রতিকেজি পেঁয়াজ ক্রেতাদের কিনতে দেখা গেছে ১২০-১৩০ টাকা দামে। তবে গত কয়েকদিনে দেড়শ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হতে দেখা গেছে।

বেঁধে দেওয়া মূল্যের বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করলে ব্যবসায়ী সংগঠনটি সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে বলে জানিয়েছে।

ক্রেতারা বলছেন কম দামে আমদানি করা পেঁয়াজ প্রতিনিয়ত বাজারে আসছে। নতুনভাবে আমদানি করা হচ্ছে, তাহলে দাম কেন একই থাকছে? ক্রেতাদের অভিযোগ, বাজারে পেঁয়াজের ঘাটতি নেই অসাধু ব্যবসায়ীরা বেশি লাভের আশায় দাম বাড়িয়ে দিচ্ছেন।

এদিকে, টিসিবি ট্রাকসেলে খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি অব্যাহত রয়েছে। সরকারি বন্ধের দিন ছাড়া প্রতিদিন ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি ট্রাকসেলে অব্যাহত রয়েছে। বাজার পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ট্রাকে করে পেঁয়াজ বিক্রি অব্যাহত থাকবে বলে জানানো হয়েছে।