ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯ | ৩০ কার্তিক ১৪২৬

Live

ডালের উৎপাদন বেড়েছে --- কৃষিমন্ত্রী

মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন

১৯:০০, ২৮ জুলাই ২০১৯ রোববার

কৃষিকে বাণিজ্যিকীকরণ করতে হবে এটা যার যার অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে। নিজেদের আরও উদ্যোগী হতে হবে ।গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলোকে অবশ্যইজবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে। তরুণ বিজ্ঞানীদেও আরও বেশী বেশী ভালো কাজ করতে হবে,তরুনের উদ্যোমকে কাজে লাগাতে হবে। কৃষি যান্ত্রিকরণকে জন্য দ্রুত কাজ করতে হবে এবং কৃষকের কল্যাণের কথা বিবেচনা করে যন্ত্রের পরামর্শ দিতে হবে এর জন্য ৩ হাজার ২শ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। কৃষিকে লাভবান করতে হলে কৃষির উৎপাদন খরচ কমাতে হবে, এর জন্য যান্ত্রিকীকরণ অপরিহার্য। দেশ প্রেম, নিষ্ঠা,আন্তরিকতা ও সততার সাথে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে । প্রকল্প সঠিক সময় বাস্তবায়ন করতে হবে।


আজ (রোববার) কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক এমপি মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মাসিক এডিপি সভায় এসব কথা বলেন। সভায় কৃষির বিভিন্ন দপ্তর তাদেও কৃতকার্মেও জন্য প্রাপ্ত পুরস্কার মন্ত্রীর হাতে তুলে দেন।

https://www.krishikagoj.com/media/PhotoGallery/2018March/Untitled-2-1907281259.jpg


কৃষিমন্ত্রী বলেন, খাদ্যে ভারী মাত্রায় মেটাল,খাদ্যে ভেজাল এগুলো নির্ণয় করাও কৃষি মন্ত্রনালয় অধিন দপ্তরেরও দায়িত্ব। নিজেদের তাগিদে এসব কাজ করতে হবে। সব দপ্তরকে অ্যক্রিডেটে ল্যাবেরটরি স্থাপনেরও তাগি দেন মন্ত্রী। সবাইকে ইনোভেটিভ হতে হবে। ডালের উৎপাদন ভালো হয়েছে প্রায় ৮ লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন, পটুয়াখালী জেলায় ৮০ হাজার মেট্রিক টন উৎপন্ন হয়েছে। তেলের ক্ষেত্রে আমদানি নির্ভরতা কমিয়ে আনার জন্য সারা দেশ ব্যাপী বৃহৎ প্রকল্প গ্রহণের কথা উল্লেখ করেন কৃষিমন্ত্রী । এবছর মোট তেল উৎপন্ন হয়েছে ৬ লাখ টন। মন্ত্রী বলেন যে কোন সমস্যার আপনাদের সহায়তায় নিয়োজিত আছি এটা মনে রাখবেন ।
উল্লেখ্য, কৃষি মন্ত্রণালয়ের ২০১৮-১৯ অর্থবছওে ৭২ টি প্রকল্পে ১ হাজার ৮ শত ৬ দশমিক ৮৯ কোটি টাকা বরাদ্দের বিপরিতে ১ হাজার ৪ শ ৮২ দশমিক৩৭ কোটি টাকা অবমুক্ত করা হয়েছে। জুন ২০১৯ পর্যন্ত প্রকল্প বাস্তবায়নের অগ্রগতি ৯৪ দশমিক ২৩ভাগ। ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের জন্য ৬৫ টি প্রকল্পের জন্য ১হাজার ৭শ ৩৯দশমিক ২৭ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে।


সভায় জানানো হয় এই বছর ৭ হাজার ৬শ ৩৫ কোটি টাকার সবজি,৮শ ৩৭ কোটি টাকার বিভিন্ন ফল,৪৫ কোটি টাকার ফুল বিদেশে রপ্তানী করা হয়েছে। এ হার প্রতিনিয়ত বাছরে। এসময় নিজেদের উদ্ভাবিত কিছু কাজু বাদাম চারা দেখানো হয় মন্ত্রীকে। সরাসরি কৃষির সাথে সম্পৃক্ত নয় এমন কোন প্রকল্প যেন গ্রহণ করা না হয় বল্লেন কৃষি মন্ত্রী।


কৃষি সচিব মো: নাসিরুজ্জামান সভার সঞ্চলনা করেন। সভায় মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালকগণ এবং মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভার সভাপতি মাননীয় কৃষিমন্ত্রী সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি করেন।


কৃষি কাগজ/এস এম